• প্রচ্ছদ » ব্রেকিং নিউজ » সাহসিকতা আর আত্মত্যাগের জন্য সংবর্ধিত হলেন বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের সাংবাদিক


সাহসিকতা আর আত্মত্যাগের জন্য সংবর্ধিত হলেন বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের সাংবাদিক

জয়যাত্রা ডট কম : 17/11/2017

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : বিশ্বব্যাপী হত্যাকাণ্ড, নানান ধারার হুমকি, হয়রানি ও কারাবাসের শিকার জীবিত ও মৃত সাংবাদিকদের সংবর্ধনা দিয়েছে সাংবাদিকদের সুরক্ষায় কাজ করা আন্তর্জাতিক সংগঠন কমিটি টু প্রটেক্ট জার্নালিস্টস (সিপিজে)। বুধবার (১৫ নভেম্বর) নিউ ইয়র্কে এক সান্ধ্যকালীন আয়োজনে সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতার পক্ষে সোচ্চার ওই সাংবাদিকদের সংবর্ধিত করা হয়।

সিপিজে সাংবাদিকদের সুরক্ষায় কাজ করা আন্তর্জাতিক সংগঠনগুলোর মধ্যে শীর্ষস্থানীয়। এই সংগঠন সংবাদকর্মীদের ভয়হীন কর্মপরিবেশে কাজ করার অধিকারের পক্ষে সোচ্চার। বুধবার যে সাংবাদিকরা সংবর্ধিত হয়েছেন তাদের কেউ কেউ হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছেন রাষ্ট্রীয় রোষানলে। কারও কারও রয়েছে সুদীর্ঘ কারাবাসের অভিজ্ঞতা। কেউ আবার অব্যাহত হুমকির মধ্যে কাজ করে যাচ্ছেন।

ইয়েমেনের এক নারী রিপোর্টার ও ব্লগার আফরাহ নাসের। এখন বাস করছেন সুইডেনে। সরকারের বিরুদ্ধে সমালোচনামূলক প্রতিবেদন তৈরি করেছিলেন তিনি। এরপর তাকে মৃত্যুর হুমকি দেওয়া হয়। দেশ ত্যাগে বাধ্য হন আফরাহ। জাতিসংঘের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, গত আড়াই বছরে ইয়েমেনে সৌদি-আগ্রাসী যুদ্ধে ৭০ লাখ মানুষ দুর্ভিক্ষের মতো অবস্থানে রয়েছে।

নাসের  জানান, সাংবাদিকতার জন্য বিশ্বের সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ জায়গাগুলোর মধ্যে একটি ইয়েমেন। সেখানে কাজ করা খুব কঠিন ছিলো তার জন্য। সংবর্ধিত হওয়ার অভিজ্ঞতার কথা জানাতে গিয়ে তিনি আল জাজিরা’কে বলেন, ‘আমার এই অর্জনটি ইয়েমেনের আত্মপ্রচারবিমুখ সেইসব সাংবাদিকের জন্য উৎসর্গিত হলো যারা নিভৃতে কাজ করে যাচ্ছেন আর প্রতিদিন প্রত্যাখ্যান করে যাচ্ছেন ক্ষমতাশালীদের প্রচারণা কৌশলকে।

নাসেরের মতো আরও বেশ কয়েকজন সাংবাদিক প্রেস ফ্রিডম সম্মাননা পেয়েছেন। তাদের মধ্যে রয়েছেন ক্যামেরুন, থাইল্যান্ড ও মেক্সিকোর সাংবাদিকরা।

সম্মাননা পাওয়া ক্যামেরুনের সাংবাদিক আহমেদ আব্বা। তিনি  রেডিও ফ্রান্স ইন্টারন্যাশনাল-এর হাউসা সার্ভিসের একজন প্রতিনিধি। ২০১৫ সালের জুলাই থেকে তিনি ক্যামেরুনে কারাবন্দি হন। এরপর তার বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদে জড়িত থাকার অভিযোগ দায়ের করা হয়।  ২০১৭ সালের শুরুর দিকে জঙ্গি সংগঠন বোকো হারেমের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ১০ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

রিপোর্টার ও দীর্ঘদিন ধরে সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতার পক্ষে সোচ্চার কণ্ঠস্বর থাইল্যান্ডের প্রবিত রজানাফুকও পেয়েছেন সম্মাননা।  মূলত সমালোচনামূলক ও অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার জন্য দেশটির সেনাবাহিনীর হুমকির শিকার হয়েছেন তিনি।

মেক্সিকোর সাময়িকী প্রসেসো’র প্রতিনিধি প্যাট্রিসিয়া মায়োর্গাও প্রেস ফ্রিডম অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন। দেশটির ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল, অপরাধ চক্র, গুম ও মানবাধিকার বিষয়ে সাহসী সাংবাদিকতার জন্য তাকে সম্মাননা দেওয়া হয়। এসব খবর প্রকাশের পর তিনি অনেক হুমকি পেয়েছেন।

সাংবাদিকদের সাহসিকতা ও আত্মত্যাগের প্রতি সম্মাননা জানানোর এই অনুষ্ঠানটিতে ওঠে এসেছে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে সাংবাদিকরা হুমকির শিকার হচ্ছেন। অনুষ্ঠানে এমন কয়েকজন সাংবাদিকের কথা তুলে ধরা হয়।

২০১৭ সালের ১৬ অক্টোবর গাড়িতে রাখা শক্তিশালী বোমা বিস্ফোরণে নিহত হন মাল্টার অনুসন্ধানী সাংবাদিক ডাফনে চারুয়ানা গালিজিয়া। তিনি একটি জনপ্রিয় ব্লগ পরিচালনা করতেন। সরকারের উচ্চ পর্যায়ে জড়িত বিভিন্ন রাজনীতিকদের বড় ধরনের দুর্নীতিতে জড়িত থাকার কথা তিনি অবিরাম লিখে গেছেন। পানামা পেপারসে মাল্টার লোকজনের থাকার কথাও তিনি সামনে এনেছিলেন এবং জড়িত ব্যক্তিদের পরিচয় প্রকাশ করেছিলেন।

মিসরের কায়রোতে কারাবন্দি হন আল জাজিরার সাংবাদিক মাহমুদ হুসেইন। পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে গেলে তাকে আটক করা হয়। তাকে প্রায় ৩৩০ দিন কারাবন্দি রাখে মিসর সরকার। যদিও সরকারের দাবি, ভুয়া খবর ছড়ানোর দায়ে তাকে আটক করা হয়েছে। আল জাজিরা হুসেইনের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে অবিলম্বে তার মুক্তি চেয়েছে।

সিপিজে’র অ্যাডভোকেসি পরিচালক কোর্টনি রাডচ বলেন, এই মুহূর্তে বিশ্বের দুঃখজনক ঘটনা হচ্ছে মিসর। ২০১১ সালের অভ্যুত্থানের আগ পর্যন্ত কোনও সাংবাদিক কারাগারে ছিলেন না, হয়ত বছরে একজন ছিলেন। কোনও সাংবাদিক হত্যার শিকার হতেন না। কিন্তু এখন মিসর সাংবাদিকদের কারাগারে পাঠানোর ক্ষেত্রে বিশ্বের মধ্যে তৃতীয় স্থানে রয়েছে।

সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানটি এমন এক সন্ধ্যায় পরিণত হয় যেখানে মানুষ সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা নিয়ে গভীর চিন্তা-ভাবনা করেন। এই মানুষদের আশা, সাংবাদিকতাকে অপরাধ হিসেবে আখ্যায়িত করার বিরুদ্ধে কণ্ঠ সোচ্চার করার সময় হয়েছে।




সর্বশেষ সংবাদ

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: মো. হাফিজউদ্দিন
সম্পাদক - শরিফা নাজনীন
Mob : 01712 522087
ই- মেইল : [email protected]
Address : 125, New Kakrail Road, Shantinagar Plaza (5th Floor - B), Dhaka 1000
Tel : 88 02 8331019