পোশাক যখন স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর

জয়যাত্রা ডট কম : 22/03/2018

নিজস্ব প্রতিবেদক :

পোশাকের ব্যাপারে সতর্ক না হলে আমাদের শরীরে অনেক ধরনের ক্ষতি হতে পারে, এমনকি প্রাণঘাতী ক্যানসারও হতে পারে। এ প্রতিবেদনে অবিবেচনাপ্রসূত পোশাক-পরিচ্ছদের ব্যবহারে আমাদের যেসব স্বাস্থ্য সমস্যা হতে পারে তা নিয়ে আলোচনা করা হলো।

* টক্সিক ফ্যাব্রিক
মানুষের তৈরিকৃত ফ্যাব্রিক যেমন- পলিয়েস্টার, নাইলন, রেয়ন এবং এক্রাইলিককে রঞ্জক পদার্থ ও কেমিক্যালের সংস্পর্শে আনা হয়। ডা. গ্যাব্রিয়েলা ফারকাস বলেন, ‘এসব টেক্সটাইলকে টক্সিক ফাইবার দিয়ে তৈরি করা হয়, বিশেষ করে ফ্যাশন ও মনকে আকর্ষণ করে এমন পোশাকসমূহ।’ তিনি যোগ করেন, ‘স্টেইন-রেজিস্ট্যান্ট, ইনসেক্ট-রেপেলিং, ফ্লেইম-রিটারড্যান্ট, ওয়াটার-রেপেলেন্ট, ওয়াটারপ্রুফ, পারস্পাইরেশন-প্রুফ, অ্যান্টি-স্টেটিক, অ্যান্টি-ক্লিং এবং অ্যান্টি-শ্রিনকের ব্যাপারে সতর্ক থকুন।’ আপনি এসব পোশাক যতবেশি ব্যবহার করবেন ততবেশি টক্সিক কেমিক্যালের সংস্পর্শে আসবেন। ম্যাপল হলিসটিক্সের হেলথ অ্যান্ড ওয়েলনেস এক্সপার্ট ক্যালেব ব্যাকি বলেন, ‘এসব কেমিক্যাল কাপড় থেকে পৃথক হয়ে যেতে পারে ও আপনার ত্বকে লেগে থাকতে পারে এবং অবশেষে আপনার রক্তপ্রবাহে চলে যেতে পারে।’ এসব কেমিক্যালের কারণে আপনার ত্বকে র‍্যাশ হতে পারে, এমনকি এর চেয়েও বেশি উদ্বেগজনক সমস্যা হতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টারস ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের গবেষণায় পাওয়া যায়, ‘পোশাকের কিছু কেমিক্যাল (যেমন- ডিমেথাইলফরমেমাইড) লিভার ড্যামেজের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত।’ প্রাকৃতিক ফাইবার এবং আদর্শ অর্গানিক যেমন- কটন, উল, সিল্ক, ফ্ল্যাক্স ও হেম্প বেছে নিতে পারেন।

* স্কিন টাইট জিন্স
নিম্ন রক্তপ্রবাহ, পায়ের ফোলা এবং রক্ত জমাটবদ্ধতার জন্য আপনার রেনেসান্স-স্টাইল লেইস করসেটের প্রয়োজন নেই, এসবের জন্য স্কিনি জিন্স বা স্কিন টাইট জিন্সই যথেষ্ট। স্কিনি জিন্স পরার কারণে পা অসাড় হতে পারে। জার্নাল অব নিউরোলজি নিউরোসার্জারি অ্যান্ড সাইকিয়াট্রিতে প্রকাশিত একটি গবেষণা থেকে জানা যায়, স্কিনি জিন্স পায়ের মাসল ও নার্ভ ফাইবার ড্যামেজ করতে পারে।

* ডিটারজেন্ট
বাম্প, রেডনেস এবং র‍্যাশে ভুগছেন? এর জন্য আপনার লন্ড্রি রুটিন দায়ী হতে পারে। ডার্মাটোলজিস্ট জেফ্রি ফ্রমোউটজ বলেন, ‘ডিটারজেন্ট এবং লন্ড্রি সোপের রঞ্জক পদার্থ ও সুগন্ধিতে কেমিক্যাল থাকে যা পরিষ্কার করে, দুর্গন্ধ দূর করে এবং জীবাণুমুক্ত করে।’ তিনি যোগ করেন, ‘অ্যাকজিমা অথবা অত্যধিক সেনসিটিভ স্কিনের লোকদের এসবের অল্প সংস্পর্শেও রিঅ্যাকশন হতে পারে।’ তিনি রঞ্জক পদার্থ ও সুগন্ধিযুক্ত ডিটারজেন্ট ব্যবহার না করে লিকুইড প্রোডাক্ট বেছে নেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন, কারণ লিকুইড প্রোডাক্টে পাউডারের চেয়ে কম রেসিডিউ থাকে। আপনার ওয়াশিং মেশিনের ‘এক্সট্রা রিন্স’ সেটিং ব্যবহার করুন এবং ওয়াশিং মেশিন পরিষ্কার রাখুন।

* আপনার না ধোয়া পোশাক-পরিচ্ছদ
যা ঋতুভিত্তিক একবার ধোয়া হয় (যেমন- উইন্টার কোট, মাফলার এবং গ্লাভস) তাতে প্রচুর ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাস থাকে, যা আপনাকে অসুস্থ করতে পারে। প্রতি সপ্তাহে হ্যাট ও মাফলার এবং প্রতিদিন পাজামা ধোয়া উচিত।

* হাই হিল
পাম্প এবং টি-স্ট্র্যাপ হিল আপনার পায়ে কেবলমাত্র ব্যথা ও ফোস্কা সৃষ্টি করে না, প্রকৃতপক্ষে হাই হিল পরার কারণে আপনার পায়ের কাফ কমে যেতে পারে। যখন আপনি দিনের পর দিন হাই হিলে স্লাইড করবেন, অ্যানাটমিক্যালি আপনার গোড়ালি উত্থিত হবে এবং কাফের মাসল সংকুচিত হবে। এসব মাসল ফাইবার শক্ত ও পুরু হলে সমতলে হাঁটতে অস্বস্তি বা অসুবিধা হতে পারে। শেষ পর্যন্ত ব্যথা এড়াতে খালি পায়ে হাঁটার সময় খাটো কাফের কারণে আপনাকে পায়ের আঙুলের ওপর ভর দিয়ে হাঁটতে হতে পারে।

* থং
থং বা প্যান্টির সঙ্গে সম্পর্কিত সমস্যা এর ডিজাইনের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত নয়, কিন্তু এটি কি দিয়ে তৈরি তার সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত। নন-ব্রিদ্যাবল ম্যাটারিয়াল ময়েশ্চার ধরে রাখে এবং ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশন ও ইস্ট ইনফেকশনের দিকে ধাবিত করে। কটন ক্রচ ব্যবহারের কথা ভাবছেন? এটি ব্যবহার করবেন কিনা পুনর্বিবেচনা করুন, কারণ এটি পর্যাপ্ত পরিমাণে ময়েশ্চার দূর করতে পারে না, যার ফলে এতে ব্যাকটেরিয়া বাসা বাধতে পারে।

* ভারী হ্যান্ডব্যাগ
ভারী হ্যান্ডব্যাগ বহনের কারণে কাঁধ ও ঘাড়ে ব্যথা হতে পারে, স্নায়ু ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে, ব্যথা ছড়িয়ে বাহুতে যেতে পারে এবং কার্পেল টানেল সিন্ড্রোম হতে পারে। এমনকি আপনি পিঠ ব্যথা ও আর্থ্রাইটিসের দিকেও চালিত হতে পারেন। ব্যাকপ্যাক ব্যবহার অথবা উভয় কাঁধে ব্যাগের ওজন সমানভাবে রাখার কথা বিবেচনা করতে পারেন।

* ফ্লিপ ফ্লপ
ফ্লিপ ফ্লপ হচ্ছে গ্রীষ্মের অফিশিয়াল মাসকট, কিন্তু ব্যবহারের ফলে তা ক্ষয়ে যায়। সিম্পল স্টেপস টু ফুট পেইন’র লেখক এবং বায়োমেকানিস্ট ক্যাটি বাওম্যান বলেন, ‘ফ্লিপ ফ্লপ পরে হাঁটার সময় আপনাকে পায়ের পেশীর সাহায্যে তা আঁকড়ে ধরতে হয়, যাতে পা থেকে ফ্লিপ ফ্লপ পড়ে না যায়।’ এর ফলে হ্যামার টো বা পায়ের আঙুলের পেশী ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে এবং হাঁটার ধরন বা ভারসাম্য পরিবর্তন হতে পারে- যা আপনার পুরো শরীরের মুভমেন্টে প্রভাব ফেলতে পারে। বাওম্যান বলেন, ‘পায়ের আঙুল দিয়ে ফ্লিপ ফ্লপ ধরে রাখার কারণে পায়ের কিছু আঙুলের হাড় বেঁকে যেতে পারে এবং কিছু নিচের দিকে চলে যেতে পারে।’ পায়ের আঙুলের হাড়ের অবস্থান পরিবর্তনের কারণে হাড়ে স্বাভাবিক চাপের পরিবর্তে উচ্চচাপ পড়ে, যে কারণে পায়ের আঙুলে ইনজুরি হতে পারে।

* কম্প্রেশন গার্মেন্টস
আপনার কম্প্রেশন গার্মেন্ট মারাত্মক সমস্যা তৈরি করতে পারে। এটি বুকজ্বালা, পেটফাঁপা, গ্যাস এবং স্নায়ু সংকোচনের কারণ হতে পারে। এটি আপনার অর্গানে চাপ ফেলতে পারে এবং আপনার ডাইজেস্টিভ সিস্টেমের সঠিক কার্যক্রম ব্যাহত করে। হাফিংটন পোস্টের একটি প্রতিবেদন অনুসারে, ‘এটি এমনকি রক্ত জমাটবদ্ধতা এবং ভেরিকোজ ভেইন বা বর্ধিত শিরারও কারণ হতে পারে।’ এখানেই শেষ নয়, যেকোনো ধরনের টাইট পোশাক ত্বকে ময়েশ্চার ধরে রাখতে পারে, যার ফলে ইনফেকশন ও র‍্যাশ হতে পারে।

* নতুন পোশাক
নতুন পোশাক কেনার পর ধোয়ার অভ্যাস আছে তো? নতুন পোশাকে ফরমালডিহাইডের লেয়ার থাকতে পারে যা একটি পরিচিত কার্সিনোজেন, যার ফলে ক্যানসার হতে পারে। ক্যানসারের ঝুঁকি এড়াতে নতুন কাপড় ভালোভাবে ধুয়ে ফেলুন।

* ব্যবহৃত পোশাক
অজ্ঞাত ব্যবহৃত পোশাক বা অন্য কারো ব্যবহৃত পোশাক পরবেন কিনা ভাবুন। ডা. ফারকাস বলেন, ‘কাপড়ে বিভিন্ন রোগের ব্যাকটেরিয়া, প্যারাসাইট এবং ফুঙ্গি অনেকদিন ধরে বেঁচে থাকতে পারে।’ সাধারণত যেকোনো ধরনের অর্গানিজম বা জীবাণু ধ্বংস করার জন্য তাপের প্রয়োজন হয়। বিশেষজ্ঞরা ব্যবহৃত কাপড় ৪৫ মিনিট ড্রায়ারে রাখার পর ধুয়ে ফেলার পরামর্শ দিচ্ছেন।




সর্বশেষ সংবাদ

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: মো. হাফিজউদ্দিন
সম্পাদক - তোফাজ্জল হোসেন
Mob : 01712 522087
ই- মেইল : [email protected]
Address : 125, New Kakrail Road, Shantinagar Plaza (5th Floor - B), Dhaka 1000
Tel : 88 02 8331019