থাইল্যান্ডের থাম লুয়াং গুহা থেকে গতকাল ১৩ জনকে উদ্ধার

জয়যাত্রা ডট কম : 11/07/2018


অনলাইন ডেস্ক:
থাইল্যান্ডের গুহা থেকে উদ্ধার করা ছেলেরা শারীরিক ও মানসিকভাবে ভালো আছে। তাদের বেশির ভাগই বের হয়ে আসার পর পরই চকোলেট খেতে চেয়েছে। নানা রকম সুস্বাদু খাবার, ভাজা মুরগিও আছে তাদের পছন্দের এবং চাহিদার খাবারের তালিকায়। যদিও এখুনি তাদের এসব দেওয়া হচ্ছে না। এর জন্য তাদের অপেক্ষা করতে হবে আরো কয়েক দিন। এখন সহজপাচ্য খাবার দেওয়া হচ্ছে তাদের। আর সর্বক্ষণের সঙ্গী হিসেবে তাদের চোখে থাকছে সানগ্লাস। প্রায় এক পক্ষকাল গুহায় অবস্থানের পর বাইরের আলোর সঙ্গে নিজেদের মানিয়ে নিতেই এই ব্যবস্থা।

ছেলেদের শারীরিক সুস্থতা নিয়ে চিকিৎসকরা কোনো ঝুঁকি নিতে রাজি নন। হাসপাতালের নির্জন ওয়ার্ডে তাদের রাখা হয়েছে। এরই মধ্যে তাদের টিটেনাসের ইঞ্জেকশন দেওয়া হয়েছে। কয়েকটি ছেলের মধ্যে নিউমোনিয়ার লক্ষ্মণ থাকায় তাদের অ্যান্টিবায়োটিক দেওয়া হচ্ছে। তাদের সব সময়ই চোখে চোখে রাখা হচ্ছে। আগামী এক সপ্তাহ এভাবেই কাটবে।

তবে আগামী কয়েকটা দিন যেমনই কাটুক গুহা থেকে বের হতে পেরে ‘ওয়াইল্ড বোরস’ সদস্যরা খুবই খুশি। বলছিলেন জেদসাদা চকদামরংসুক। জনস্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এই স্থায়ী সচিব গতকাল এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘শারীরিক ও মানসিক দিক থেকে ছেলেরা এখন খুবই চাঙ্গা।’ তবে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, গুহায় প্রায় পক্ষকাল অবস্থান তাদের মানসিক স্বাস্থ্যের ওপর স্থায়ী প্রভাব ফেলবে।

জেদসাদা জানান, ‘ছেলেরা রুটি আর চকোলেট খেতে চেয়েছে।’ আর ফ্রাইড চিকেনের দাবি তাদের আগে থেকেই ছিল। তবে তাদের মসলাদার খাবার এখুনি দেওয়া হবে না বলে জানান জেদসাদা। তিনি আরো জানান, ছেলেদের এক্স-রে, রক্ত পরীক্ষাসহ প্রয়োজনীয় পরীক্ষা এর মধ্যেই সম্পন্ন হয়েছে। কয়েকটি ছেলের মধ্যে নিউমোনিয়ার লক্ষ্মণ পাওয়া গেলেও তা আশঙ্কাজনক পর্যায়ের নয়।

গত রবিবার উদ্ধার করা ছেলেদের সঙ্গে তাদের মা-বাবার সরাসরি সাক্ষাৎ করতে দেওয়া হয়নি। সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে কাচের দেয়ালের অপর পাশ থেকে ছেলেকে দেখেছেন তাঁরা। আরো ২৪ ঘণ্টা পার হলে তাদের সঙ্গে যথাযথ সুরক্ষামূলক ব্যবস্থা নিয়ে মা-বাবা দেখা করতে পারবেন বলে মনে করা হচ্ছে। আর বাকিদের ক্ষেত্রে আরো সময় অপেক্ষা করতে হবে।

১৭ দিন আগে অনুুশীলন শেষে গুহায় বেড়াতে গেলে হঠাৎ বৃষ্টি ও বন্যায় আটকে যায় ১২ খুদে ফুটবলার ও তাদের ২৫ বছর বয়সী কোচ। ৯ দিন পর তাদের খোঁজ মেলে। এরপর গত রবিবার থেকে তিন দিনের অভিযান শেষে গতকাল সবাইকে গুহা থেকে বের করে আনতে সক্ষম হন ডুবুরিরা। সূত্র : এএফপি।




সর্বশেষ সংবাদ

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: মো. হাফিজউদ্দিন
সম্পাদক - তোফাজ্জল হোসেন
Mob : 01712 522087
ই- মেইল : [email protected]
Address : 125, New Kakrail Road, Shantinagar Plaza (5th Floor - B), Dhaka 1000
Tel : 88 02 8331019