সৈয়দপুরে পরিবহন শ্রমিকদের মানববন্ধন

জয়যাত্রা ডট কম : 11/10/2018

ওবায়দুল ইসলাম, সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:শ্রমিক স্বার্থবিরোধী আইনের ধারা বাতিলের দাবিতে সৈয়দপুরে পরিবহন শ্রমিকদের ঘন্টা ব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়েছে।

গত ১১ অক্টোবর সৈয়দপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল গোল চত্ত্বরে এ মানববন্ধন কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় নীলফামারী জেলা বাস মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নসহ বিভিন্ন শ্রমিক অঙ্গ সংগঠনের হাজার হাজার নেতাকর্মী মানববন্ধনে অংশ নেয়। ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন চলাকালে কয়েক শতাধিক গাড়ি সড়কে আটকা পড়ে।

মানববন্ধন চলাকালে শ্রমিকদের বিভিন্ন দাবী নিয়ে বক্তব্য বলেন, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন রংপুর বিভাগীয় কমিটির সভাপতি ও নীলফামারী জেলা বাস মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আখতার হোসেন বাদল, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন রংপুর বিভাগীয় কমিটির প্রচার সম্পাদক ও নীলফামারী জেলা বাস মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আলতাফ হোসেন, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন রংপুর বিভাগীয় কমিটির আইন বিষয়ক সম্পাদক ও নীলফামারী জেলা বাস মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক মমতাজ আলীসহ অনেকে।

বক্তারা বলেন, সড়ক দুর্ঘটনাকে দুর্ঘটনা হিসেবে দেখে সকল মামলায় জামিন যোগ্য বিধান সন্নিবেশের দাবি জানানো হয়। শ্রমিকদের দন্ডে ৫ লক্ষ টাকার পরিবর্তে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত অথদন্ডের বিধান যুক্ত করার দাবী জানান। সড়ক দুর্ঘটনার জটিলতার মামলার তদন্ত কমিটিতে শ্রমিক ও মালিক প্রতিনিধিকে অন্তর্ভূক্তের দাবী জানান। ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্য ৮ম শ্রেণির স্থলে ৫ম শ্রেণির নির্ধারণ করার দাবী জানান। কাগজপত্র চেকিং এর নামে সড়কে পুলিশের অহেতুক হয়রানী বন্ধের দাবী জানান।

ওয়েস্কেলে জরিমানার পরিমাণ কমানো এবং কারাদন্ডের বিধান বাতিলের দাবী জানান। আইনের কোন কোন ধারায় অর্থদন্ডের পরিমাণ উল্লেখ না থাকায় জটিলতা সৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রেেছ তাই এইসব ধারা সংশোধনের দাবী জানান। আলোচনার মাধ্যমে অন্যান্য আইন সংশোধনের দাবী জানান।

বক্তারা আরো বলেন, চিত্র অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চন ষড়যন্ত্রমূলকভাবে পরিবহন খাতকে ভিন্ন খাতে প্রবাহের চেষ্টার প্রতিবাদ জানান। সেই সাথে ইলিয়াস কাঞ্চন অভিনিত ছায়াছবি ও নাটক দেখা থেকে শ্রমিকরা বিরতি থাকার প্রতিশ্রুতি দেন। পরিবহন শ্রমিকরা অত্যন্ত অসহায় এবং অশিক্ষিত। তাদের তেমন কোন বেতন ভাতা নেই, ছুটি নেই, কত সময় কাজ করতে হবে তার ধরাবাধা নিয়ম নেই। তারপরও শ্রমিকদের বিপক্ষে কঠোর আইন পাশ করা হয়েছে। সরকারি ভাবে শ্রমিকদের জন্য কোন অর্থ ব্যয় করা হয় না। অথচ সরকারের বিভিন্ন খাতে অযথা কোটি কোটি টাকা ব্যয় করা হয়।

এ মানববন্ধন থেকে শ্রমিকদের প্রশিক্ষণের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপনের দাবী জানান।




সর্বশেষ সংবাদ

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: মো. হাফিজউদ্দিন
সম্পাদক - তোফাজ্জল হোসেন
Mob : 01712 522087
ই- মেইল : [email protected]
Address : 125, New Kakrail Road, Shantinagar Plaza (5th Floor - B), Dhaka 1000
Tel : 88 02 8331019