শিবগঞ্জে জমজমাট নবান্নে মাছের মেলা

জয়যাত্রা ডট কম : 18/11/2018

মো. আব্দুল ওয়াদুদ, বগুড়া প্রতিনিধি : এখন আর আগের মত বড় মাছ দেখা যায় না। কালেভদ্রে মেলা পার্বন ছাড়া বড় মাছ দেখতে পাওয়াটা এখন বিস্ময়। যত দিন যাচ্ছে নবান্ন উপলক্ষ্যে আয়োজিত মাছের মেলাও তত বড় হচ্ছে। গত প্রায় দেড়শ বছর ধরে এই মাছের মেলা হয়ে আসছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলা সদর ইউনিয়নের উথলীতে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের নবান্ন উৎসব উপলক্ষে জমজমাট মেলা বসে। স্থানীয়রা বলছেন, প্রায় ১৫০ বছর পূর্ব থেকে এই মেলা বসছে উপজেলার উথলী নামকে স্থানে। এই মেলায় শুধু সনাতন ধর্মের মানুষই না স্থানীয় অন্যান্য ধর্মের মানুষও ভিড় করে। মেলায় বিভিন্ন সাইজের মাছ উঠে থাকে। নদী ও পুকুরে চাষ করা বড় মাছ বিক্রি ও কেনার প্রতিযোগিতা লেগে থাকে এই মেলায়।

রবিবার মেলায় ৩ কেজি থেকে শুরু করে ৩০ কেজি ওজনের রুই, কাতলা, চিতল, সিলভার কাপ, ব্রিগেডসহ হরেক রকমের মাছ বিক্রি হয়। বিশালাকৃতির রুই-কাতলা ও চিতল মাছগুলো ছয়শ থেকে আটশ টাকা কেজিতে বিক্রি হলেও মাঝারি আকারের মাছ ৩০০ টাকা থেকে সাড়ে ৬০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে। এছাড়া ২০০-৩৫০ টাকা দরে ব্রিগেড ও সিলভার কাপ মাছ বেচাকেনা হয়।

প্রায় ১৫০ বছরের প্রাচীন উথলী মাছের মেলাকে কেন্দ্র করে আশেপাশের ২০ গ্রাম স্বজনদের মিলনমেলায় পরিণত হয়। এই উৎসবকে কেন্দ্র করেই প্রতিবছর মাছের মেলা বসে উথলীতে। সনাতন ধর্মাম্বলীদের নবান্ন উৎসব হলেও উথলী, রথবাড়ি, ছোট ও বড় নারায়ণপুর, ধোন্দাকোলা, সাদুল্লাপুর, বেড়াবালা, আকনপাড়া, গরীবপুর, দেবিপুর, গুজিয়া, মেদনীপাড়া, বাকশন, গনেশপুর, রহবলসহ প্রায় ২০ গ্রামের মানুষের ঘরে ঘরে ছিল উৎসবের আয়োজন। প্রতিটি বাড়িতেই মেয়ে-জামাইসহ আত্মীয়-স্বজনদের আগে থেকেই নিমন্ত্রণ করা হয়।

পরিবারের সবাইকে নিয়ে তারা নতুন ধানে নবান্ন করেন। নবান্ন উপলক্ষে সেখানে মাছের মেলা বসলেও জমি থেকে নতুন তোলা অন্যান্য শাক-সবজির পসরাও সাজানো হয় মেলা চত্বরে। এই মেলায় নতুন আলু বিক্রি হয়েছে ৩০০ টাকা কেজি দরে। এছাড়াও মিষ্টি আলু ও কেশর (ফল) প্রতি কেজি দেড়শ টাকা কেজি বিক্রি হয়েছে।




সর্বশেষ সংবাদ

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: মো. হাফিজউদ্দিন
সম্পাদক - তোফাজ্জল হোসেন
Mob : 01712 522087
ই- মেইল : [email protected]
Address : 125, New Kakrail Road, Shantinagar Plaza (5th Floor - B), Dhaka 1000
Tel : 88 02 8331019