সৈয়দপুরে স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রী নির্যাতনের মামলা

জয়যাত্রা ডট কম : 10/01/2019

ওবায়দুল ইসলাম, সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি ঃ সৈয়দপুরের অদূরে দীঘলডাঙ্গি সরকারপাড়ায় পাষন্ড স্বামী কর্তৃক স্ত্রী নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে।

এ ঘটনায় গুরুতর অসুস্থ হয়ে ১ সন্তানের জননী মাহামুদা আক্তার সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। গত ২৯ ডিসেম্বর পাষন্ড স্বামী জসিম মামুদ তার স্ত্রীর গোপনাঙ্গে বিভিন্ন ভাবে আঘাত করে।

এ বিষয়টি পরবর্তীতে তার শ্বশুরবাড়ীর লোকজন জানতে পেরে সেখানে আসেন। রক্তাক্ত অবস্থায় মেয়েকে দেখতে পেয়ে মা ও ভাই দ্রুত তাকে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করায়। স্ত্রীর অভিযোগ গত ২০১৪ সালের ১১ নভেম্বর পারিবারিক ভাবে জসিম মামুদের সাথে তার বিয়ে হয়।

 

বিয়ের পর তাদের সংসারে একটি সন্তান আসে। এরপর থেকে ওই স্ত্রীর উপর শুরু হয় স্বামীর অমানবিক নির্যাতন। স্বামীর সাথে তার শ্বশুর, শাশুড়ি ও ননদও নির্যাতন চালায়। প্রায় যৌতুকের টাকার জন্য চাপ দেয় তাকে। অবশেষে ৮০ হাজার টাকা যৌতুকের জন্য জোরচাপ দিলে স্ত্রী তা দিতে অস্বীকার করে। কারণ তার বাবার আর্থিক অবস্থা তেমন একটা ভালো নয়। তাছাড়া বিয়ের সময়েও আসবাবপত্র বাবদ বেশকিছু টাকা দেয়া হয়েছে তাদের।

নির্যাতনের এ বিষয়টি নিয়ে এলাকায় বেশ কয়েকবার শালিকবৈঠক বসে কিন্তু জসিম মামুদ ও তার পিতা কারও কথা মানেন না। ফলে স্বামী (১) জসিম মামুদ (২) শ্বশুর অফর উদ্দিন (৩) জোসনা বেগম (৪) মজিদাকে আসামী করে গত ৪ জানুয়ারি নীলফামারী সদর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন স্ত্রী মাহামুদা বেগম। বর্তমানে অভিযোগটি তদন্তাধিন রয়েছে।

এ বিষয়ে গতকাল ছেলের বাড়িতে গেলে তারা সাংবাদিকদের জানায় নির্যাতনের কোন ঘটনা ঘটেনি। ছেলের বাবা অফর উদ্দিন বলেন আমার ছেলের শারীরিক দুর্বলতার কারণে তার স্ত্রী প্রায় সংসারে ঝগড়া বিবাদ শুরু করে। এক পর্যায়ে সে রাগান্বিত হয়ে স্বামীর বাড়ি থেকে বাবার বাড়িতে গিয়ে আমাদের বিরুদ্ধে থানায় মিথ্যা মামলা দায়ের করেন।

এদিকে স্ত্রীর অভিযোগ তার উপর প্রায় নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। এতোদিন সবকিছু নির্যাতন সহ্য করে আসছিলো। কিন্তু ওইদিন তাকে মেরে ফেলার উদ্দেশ্যে শারীরিক ভাবে অমানবিক নির্যাতন চালানো হয়।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক - তোফাজ্জল হোসেন
Mob : 01712 522087
ই- মেইল : [email protected]
Address : 125, New Kakrail Road, Shantinagar Plaza (5th Floor - B), Dhaka 1000
Tel : 88 02 8331019