বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ বিশ্বের বিস্ময়

জয়যাত্রা ডট কম : 14/03/2019

নিজস্ব প্রতিবেদক : বঙ্গবন্ধুর ভাষণ শুধু মুক্তিযুদ্ধের নির্দেশনায় সীমাবদ্ধ নয়।তিনি অল্প সময়ে  যে ভাষন রেখেছেন, সেখানে সকল কিছু বিদ্যমান ছিল। এই ভাষণে এমন কোন বিষয় ছিল না, যা কোন ভাবে এড়িয়ে গেছেন তিনি। আর এজন্য বলা হয় এটা বিশ্বের বিস্ময়। এমন মন্তব্য করেছেন গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের মাওলানা মোহাম্মদ আকরাম খাঁ হলে সম্প্রীতি বাংলাদেশ আয়োজিত ‘বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণই মুক্তিযুদ্ধের নির্দেশনা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, বর্তমান প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা কোন দুর্নূীতি করেন না এবং তার ধারে কাছে যেতে সবাইকে মানা করেন কারণ তিনি বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষনকে অনুধাবন করেছেন, ভাষণটি তিনি রপ্ত করে হৃদয়ে গেথে নিয়েছেন।

তিনি বলেন, ৭ই মার্চের ভাষণের মর্মবানী শেখ হাসিনা অনুধাবন করায় তিনি একটি অপরাধমুক্ত দেশ গড়ার অঙ্গীকারাবদ্ধ।যা অন্য কোন নেতা বুঝতে পারেনি সেই স্বপ্ল সময়ের বিস্ময়কর ভাষণটি।

বিএনপির নেতাদের উদ্যেশ করে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়ন তাদের চোখে পড়ে না অথচ তারা শেখ হাসিনার উন্নয়নের ছোঁয়ায় সেলফি তোলেন।

তিনি বলেন, এখন হঠাৎ করে নেতা হওয়ার প্রতিযোগিতা, মন্ত্রী হওয়ার প্রতিযোগিতা, এমপি বা কোন কোম্পানির মালিক হওয়া অথবা হঠাৎ করে বড় একটি পোস্ট পাওয়া, এই সমস্ত অসুস্থ প্রতিযোগিতা তৈরি হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, ইতিহাস কখনো রচনা করা যায় না, ঘটে যাওয়া ঘটনা ইতিহাস। যে সকল ভাষণগুলোর সঙ্গে৭ই মার্চের ভাষণের কম্পেয়ার করা হয়েছে, ওই সমস্ত ভাষণের অবস্থান এবং বিদ্যমান পরিস্থিতি সেটা আমাদের অবস্থা থেকে সম্পূর্ণরূপে আলাদা ছিল।

তিনি বলেন, আমার কাছে মনে হয় বাঙালি জাতির ইতিহাসের পথ চলা, সবটুকু এর ভিতরে ছিল।

মন্ত্রী বলেন, আমি আমার ধর্মীয় বিশ্বাস থেকে মনে করি বাঙালী জাতির নির্যাতনের ইতিহাস অনেক দীর্ঘ। হয়তো মহান রাব্বুল আলামীন মনে করেছেন এখানে একজন মহামানব পাঠানো দরকার। সেজন্য শেখ মুজিব রূপী একজন মহামানব পাঠিয়েছেন। কিন্তু তাকে হত্যার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশকে অনেক পিছনে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, সেখান থেকে উত্তোলনের জন্য শেখ হাসিনাকে ২১ বছর লড়াই করতে হয়েছে। এই ২১ বছরের ভেতরে তাকে ১৯ বার মৃত্যুর মুখোমুখি হতে হয়েছে।

আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন সম্প্রীতি বাংলাদেশের আহ্বায়ক পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যায।মাহতাব স্বপ্নীল,সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুস, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক কামরুল হাসান খান প্রমুখ।উপস্থানায় ছিলেন দৈনিক কালেরকন্ঠ পত্রিকার সহকারী এডিটরআলী হাবিব।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক - তোফাজ্জল হোসেন
Mob : 01712 522087
ই- মেইল : [email protected]
Address : 125, New Kakrail Road, Shantinagar Plaza (5th Floor - B), Dhaka 1000
Tel : 88 02 8331019