শেখ রাসেল ক্রিকেট একাডেমি করবে বসুন্ধরা গ্রুপ

জয়যাত্রা ডট কম : 22/02/2020


জয়যাত্রা ডেস্কঃ
দেশের ক্রিকেটের উন্নয়নে শেখ রাসেল ক্রিকেট একাডেমি করার ঘোষণা দিয়েছেন দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্পগোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান। তিনি বলেছেন, আমরা একটা স্পোর্টস কমপ্লেক্স করছি, একটা ক্রিকেট একাডেমি করব। ইনশাল্লাহ সে একাডেমি আমরা শেখ রাসেলের নামে করব। এ একাডেমি থেকে লাখো ক্রিকেটার বেরিয়ে আসবে।

আজ শনিবার রাজধানীর অদূরে কেরাণীগঞ্জের পানগাঁওয়ে স্থাপিত দেশের প্রথম বেসরকারি বিটুমিন কারখানা ‘বসুন্ধরা বিটুমিন প্লান্ট’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।
সরকারি-বেসরকারি নানামুখী উন্নয়ন কর্মকাণ্ড ও অবকাঠামো নির্মাণ খাতে গতি আনতে বেসরকারি পর্যায়ে বিটুমিন উৎপাদনের পদক্ষেপ নিয়েছে বসুন্ধরা গ্রুপ। আজ শনিবার বেলা পৌনে ১২টায় পবিত্র কোরআন তেলায়াতের মাধ্যমে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। একে একে বক্তব্য রাখেন উপস্থিত অতিথিরা।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ, বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান, বসুন্ধরা গ্রুপের কো-চেয়ারম্যান সাদাত সোবহান তানভীর, বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফিয়াত সোবহান সানভীর, ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর এবং ওয়ালিদ সোবহান।

আহমেদ আকবর সোবহান বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা রিহ্যাবের এক সভায় বলেছিলেন, আপনারা সবাই খেলাধুলা পেট্রোনাইজ করবেন। খেলাধুলার জন্য আপনারা সবাই সাহায্য করবেন। আজ ক্রিকেট বাংলাদেশের যে অবস্থান তার ৯৯ শতাংশ অবদান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার।
তিনি বলেন, আজ ক্রিকেটকে তিনি যে উৎসাহ-উদ্দীপনা দিয়েছেন, ক্রিকেটারদের সাথে তাঁর যে ব্যক্তিগত সম্পর্ক। প্রতিটি ক্রিকেটারের সাথে তাঁর সম্পর্ক। তিনি ফোনে কথা বলেন, এসএমএস করেন। তাঁদের উৎসাহ দেন। তাঁদের কারো ওজন বেড়ে গেলে তিনি বলেন, তোমরা ওজন কমাও। তাঁর সে উৎসাহে আজকে বাংলাদেশের ব্র্যান্ডিং ক্রিকেটের আন্ডার নাইন্টিনে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। আজকের আন্ডার নাইন্টিন টিম ইনশাল্লাহ একদিন মূল ক্রিকেটে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হবে। সে দিন হয়তো বেশি দূরে না।

তিনি বলেন, আজকে ক্রিকেটের মাধ্যমে বাংলাদেশের ব্র্যান্ডিং হচ্ছে, বাংলাদেশকে চিনছে, শেখ হাসিনাকে চিনছে, বঙ্গবন্ধুকে চিনছে, বাংলাদেশের অর্থনীতিকে চিনছে।

বসুন্ধরা গ্রুপ চেয়ারম্যান বলেন, আমরা সৌভাগ্যবান। আমাদের সন্তানরা আমাদের থার্ড জেনারেশনও আমাদের সাথে আছে। এবং আমরা সবাই একসাথে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্মশতবার্ষিকী পালন করতে যাচ্ছি। আমি আর শেখ কামাল একসাথে ছাত্রলীগ করতাম। সে নাই, আমাদের দুর্ভাগ্য। খেলাধুলায় তাঁর যে অবদান। আমাদের বড় ভাই থখন প্রথম আবাহনী ক্লাবের ক্যাপ্টেন হলো। শেখ কামালের খেলার প্রতি যে ভালোবাসা আর মমত্ববোধ ছিল আমি আর কারো মাঝে তা দেখিনি। এখন একমাত্র শেখ হাসিনার মাঝে তা দেখি। আমরা একটা স্পোর্টস কমপ্লেক্স করছি, একটা ক্রিকেট একাডেমি করব। ইনশাল্লাহ সে একাডেমির নাম আমরা শেখ রাসেলের নামে করব।

আহমেদ আকবর সোবহান বলেন, শেখ হাসিনা বলেন, প্রতিটা শিশুকে দেখলে আমার শেখ রাসেলের কথা মনে পড়ে। এই যে তাঁর অন্তর্দহন- এটা শুধু উনিই বোঝেন। এ ছাড়া আর কেউ বুঝবে না। আমাদের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আনভীর, সে শেখ রাসেল ক্লাবের প্রেসিডেন্ট গত পাঁচ বছর ধরে। আমার ছোট ছেলে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের প্রেসিডেন্ট গত চার বছর ধরে। ইনশাল্লাহ শেখ রাসেল ক্রিকেট একাডেমি থেকে লাখো ক্রিকেটার বেরিয়ে আসবে এবং শেখ রাসেলকে তিনি সব সময় দেখতে পাবেন ওই শিশুদের মাঝে।

পরিশোধিত ক্রুড অয়েলের উপজাত থেকে তৈরি বিটুমিন সড়ক-মহাসড়ক নির্মাণে ব্যবহার করা হয়। আর বাংলাদেশের মতো দেশগুলো বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই আমদানি করা বিটুমিনের ওপর নির্ভরশীল। দেশে বিটুমিনের মাসিক চাহিদা ৪২ হাজার টন। এই চাহিদা প্রতিবছর গড়ে ১০ থেকে ১৫ শতাংশ হারে বাড়ছে। বসুন্ধরা বিটুমিন প্লান্ট এককভাবে বছরে সাড়ে আট লাখ মেট্রিক টন বিটুমিন উৎপাদন করতে পারবে। ফলে সরকারের বিপুল অঙ্কের বৈদেশিক মুদ্রা সাশ্রয় হবে।

সূত্র জানায়, আমদানিনির্ভরতা কমিয়ে একই সঙ্গে সময়মতো চাহিদার জোগান এবং গুণগত মান নিশ্চিত করতে বেসরকারি খাতে বসুন্ধরা গ্রুপই দেশে প্রথমবারের মতো বিটুমিন উৎপাদনের উদ্যোগ নিয়েছে। এই কারখানায় উৎপাদিত বিটুমিন মানগত দিক দিয়ে সাধারণ বিটুমিনের চেয়ে আরো উন্নত হবে। এটি হবে বিশ্বের সেরা ব্র্যান্ডের বিটুমিনের সঙ্গে তুলনীয়। এ ছাড়া ক্রেতার চাহিদামতো গ্রেড ও মানের বিটুমিন সরবরাহ করা যাবে।

বসুন্ধরা বিটুমিন কারখানাটি স্টেট অব আর্ট অবকাঠামো হিসেবে গড়ে তোলা হয়েছে, যেখানে রয়েছে উন্নত মানের সব সেবা ও সুযোগ-সুবিধা। ক্রেতাকে চাহিদা অনুয়ায়ী সময়মতো ড্রাম বা বাল্ক আকারে বিটুমিন সরবরাহ দেওয়ার জন্য কারখানা এলাকায় দক্ষ ও মানসম্পন্ন সুযোগ-সুবিধার অবকাঠামোও গড়ে তোলা হয়েছে। নতুন কারখানাটি চাহিদা অনুযায়ী উন্নত গ্রেডের বিটুমিন উৎপাদন করবে। কাটব্যাক, এমালসিফাইড, অক্সিডাইজড ও পলিমারসহ (এসবিএস, রাবার পাউডার) ক্রেতার চাহিদা অনুযায়ী উৎপাদন ও সরবরাহে সক্ষম এই প্লান্ট।

বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের (বিপিসি) নিয়ন্ত্রণাধীন ইস্টার্ন রিফাইনারি অভ্যন্তরীণভাবে কিছু বিটুমিন উৎপাদন করে। চাহিদার বাকি ৯০ শতাংশই মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ থেকে আমদানি করতে হয়। আর আমদানি করা বিটুমিনের মান নিয়ে প্রশ্ন আর অভিযোগ উঠেছে বারবার। বলা হয়েছে, নিম্নমানের হওয়ায় এসব বিটুমিন সড়কে ব্যবহারের পর তা টেকসই হচ্ছে না। এতে সরকারের উন্নয়ন প্রকল্পের অর্থের সদ্ব্যবহার সম্ভব হচ্ছে না। আবার সরকারকে চাপে পড়ে আবার নতুন প্রকল্পও নিতে হয় মাঝেমধ্যে। এ অবস্থায় দেশেই সর্বোচ্চ মানসম্পন্ন বিটুমিন উৎপাদনের পরিকল্পনা পুরো অবকাঠামো উন্নয়ন খাতে ইতিবাচক বড় ভূমিকা রাখবে। আর বসুন্ধরা বিটুমিন প্লান্টটিও স্থাপন করা হয়েছে সেই লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য সামনে রেখে। এখানে আদর্শ বিপণন ব্যবস্থাও নিশ্চিত করা হয়েছে। বিটুমিনের পাশাপাশি এই প্লান্টে জ্বালানি তেলসহ কিছু বাই-প্রডাক্টও উৎপাদন করা হবে।

দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্প গ্রুপ হিসেবে বসুন্ধরা এরই মধ্যে সিমেন্ট, পেপার, টিস্যু, এলপিজি উৎপাদন ও বিপণন, জ্বালানি এবং ট্রেডিং খাতে সাফল্যের স্বাক্ষর রেখেছে। এরই ধারাবাহিকতায় সর্বাধুনিক প্রযুক্তিসংবলিত বসুন্ধরা বিটুমিন প্লান্টও রপ্তানিনির্ভরতা দূর করে অভ্যন্তরীণ চাহিদার অতিরিক্ত উৎপাদন করে বিদেশে বিটুমিন রপ্তানিতে উদ্যোগী হবে।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক - তোফাজ্জল হোসেন
Mob : 01712 522087
ই- মেইল : [email protected]
Address : 125, New Kakrail Road, Shantinagar Plaza (5th Floor - B), Dhaka 1000
Tel : 88 02 8331019