বরগুনার আমতলীতে সরকারি স্থাপনা ও স্কুল কলেজের সামনে ঘর উঠিয়ে খাস জমি দখল।। পরিবেশ দূষণ

জয়যাত্রা ডট কম : 24/09/2020


এম আর অভি, বরগুনা : বরগুনার আমতলী উপজেলা শহরের গুরুত্বপূর্ন সরকারি-বে-সরকারি স্থাপনা ও স্কুল কলেজের সামনে ঘর উঠিয়ে খাস জমি দখল করে পরিবেশ দূষণ করা হচ্ছে । এক শ্রেণীর প্রভাবশালীদের দাপটে অসহায় প্রশাসন ,স্কুল-কলেজ কর্তৃপক্ষ ও সাধারণ জনগণ। প্রশাসনের নাকের ডগায় পেশী শক্তি জোরে চলছে এমন দখলদারিত্ব।
বিশ্বস্ত সূত্রে জানাগেছে, বরগুনা জেলার আমতলী উপজেলার সরকারি দপ্তর উপজেলা পরিষদ ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়, তৎকালিন বরগুনা আমতলীর এপিএ আলহাজ মফিজ উদ্দিন তালুকদার এবং তার একমাত্র জামাতা সাবেক মরহুম এমপি নিজাম উদ্দিন তালুকদার, ঐতিজ্যবাহি বসত বাড়ির সামনের সদর রোডের পাশের খাদার পানির ওপর পিলার গেরে মাচা দিয়ে (উপজেলা পরিষদ ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় প্রধান ফটক ঘেঁসে) খাস জমিতে ঘর গুলো উঠানো হয়েছে।
আমতলী শহর উন্নয়ন, সদর রোড নির্মাণ ও পাইলিং করার সময় জেলা পরিষদ, সরকারি এবং স্কুল-কলেজের নিজস্ব জমিতে এ খাদা গুলোর সৃস্টি হয়। এ খাদার ওপর অবৈধ দখলদাররা ঘর উঠিয়ে কিছু নিজেরা ব্যবহার করছে, আবার কেউ কেউ ভাড়া দিয়ে মোটা অংকের টাকা আয় করছে। খাদার পানিতে প্রশাব-পায়খানা করায় পরিবেশ নোংরা হচ্ছে। পরিবেশ দূষিত হওয়ায় বাতাসে র্দূগন্ধ ছড়াচ্ছে। পুরো উপজেলা পরিষদ এলাকার পরিবেশ দূষণের ফলে র্দূগন্ধে ঘ্রাণ ইন্ধিয় ত্রাহি ত্রাহি করে উঠছে। বাতাসে র্দূগন্ধ ছড়িয়ে পড়ায় অফিস আদালতে বসে কাজ করা, স্কুল কলেজে পাঠদান ব্যহত হচ্ছে। এমনকি আবাসিক বাড়ির বাসিন্দাদের বসবাস করতে কষ্ট হচ্ছে। খাদাগুলো বর্তমানে মশা-মাছির অভায়রণ্য। যার কারণে এ এলাকায় জনস্বাস্থ্য আজ হুমকির মুখে।
কিছু অবৈধ ভাবে ঘর উঠিয়ে খাস জমি দখল করায় বর্তমানে আমতলী ডিগ্রি কলেজ রাস্তা থেকে দেখা যায় না। আজ অবৈধ দখলদারদের ঘরের আড়ালে পড়ে রয়েছে দক্ষিণাঞ্চলের ঐতিজ্যবাহি আমতলী উপজেলা শহররে ডিগ্রি কলেজটির সুন্দর ক্যাম্পাস।
অপরদিকে দক্ষিণাঞ্চলের ঐতিজ্যবাহি মফিজ উদ্দিন বালিকা পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সামনের সদর রোডের পাশের খাস জমি কিছু অংশ দখলের পাঁয়তারা করছে একশ্রেণীর ভূমি দস্যূরা। এর সামনের রাস্তার পাশের খাস জমি কিছু অংশ দখল করে নোংরা করে পরিবেশ মারাত্বক দূষণ করা হচ্ছে।
এ দিকে বিদ্যালয়ের সামনের রাস্তার পাশের খাস জমির ওপর ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ঘর নির্মাণ বন্ধ করার দাবী জানিয়ে লিখিত আবেদন করেছে আমতলী মফিজ উদ্দিন বালিকা পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. শাহ আলম কবির ,তিনি বাংলাদেশ সরকারে শিক্ষা মস্ত্রী, শিক্ষা সচিব ও বরগুনা জেলা প্রশাসক বরাবরে পৃথক -পৃথক আবেদন করেন। আবেদনে আমতলী উপজেলার প্রাণ কেন্দ্র মফিজ উদ্দিন বালিকা পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়। বিদ্যালয়ের সামনের রাস্তার পাশের খাস জমি দখল হয়ে গেলে ছাত্রীদের পড়া-লেখার পরিবেশ নষ্ট হবে , দূষিত হবে এলাকা। ইভটিজিং এর শিকার হবে ছাত্রীরা এমন আপত্তি জানিয়েছেন । এ বিদ্যালয়ের সামনে জেলা পরিষদ ও বিদ্যালয়ের কিছু জমি আছে। জেলা পরিষদের জমিতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ঘর তুলতে গিয়ে মফিজ উদ্দিন বালিকা পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের কিছু জমি দখল করছে। এ ঐতিজ্যবাহি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সামনে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান হলে বিদ্যালয়ের ছাত্রীরা নিরাপত্তা হীনতায় ভোগবে। ছাত্রী উত্ত্যাক্ত ইভটিজিং বেড়ে যাবে। ফলে বিদ্যালয়ের ছাত্রী সংখ্যা কমবে ও নোংরা হবে পরিবেশ। আবেদনে এমনটি উল্লেখ করে ঘর উত্তোলন বন্ধের দাবী জানানো হয়।
স্থানীয় বাসিন্দা এস এস প্লাজার মালিক আলহাজ্ব এস,এম শাহজাহান কবির জানান,আমরা যারা এখানে বসবাস করছি, পরিবেশ দূষনের ফলে আমাদের জীবন যাপন করতে কষ্ট হয়। উপজেলা পরিষদ ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ের সামনের এমন নোংরা পরিবেশ নিয়ে উপজেলা ভূমি কমিটির সভায় বিষয়টি বারবার উথাপন করলেও আজ অবধি কোন ব্যবস্থা নেয়নি প্রশাসন। তিনি আরও জানান,এ খাদার পানি এখন মশার উৎপাদন স্থল।এখানে খোলা জায়গায় পানিতে পায়খানা প্রশাব করা হচ্ছে।এখানের পরিবেশ মারাত্ক হুমকিতে। আমরা এ থেকে পরিত্রান চাই। এক শ্রেণীর প্রভাবশালীদের মদদে সরকারি দপ্তর সমূহের সামনে এমন ভাবে ঘর উঠিয়ে এখানে মোটা অংকের টাকার উৎকোচ বাণিজ্য চলছে।
বরগুনা জেলা পরিষদ সদস্য শাহিনুর তালুকদার জানান, আমরা কিছু জমি লিজ দিয়েছি। কিছু জমি লিজ দেয়ার প্রক্রিয়া চলছে। পরিবেশ নষ্ট করায় এ সপ্তাহে সভা ডেকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হবে।
এ ব্যাপারে আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আসাদুজ্জামান বলেন, আমি আমতলীতে সদ্য (৪সেপ্টেম্বর) যোগদান করেছি। যেহেতু এটি দীর্ঘ দিনের সমস্যা ,ব্যবস্থা নেব।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক - তোফাজ্জল হোসেন
Mob : 01712 522087
ই- মেইল : [email protected]
Address : 125, New Kakrail Road, Shantinagar Plaza (5th Floor - B), Dhaka 1000
Tel : 88 02 8331019