Posted on

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতের তাণ্ডব, ভাঙচুর-অগ্নিসংযোগ


নিজস্ব প্রতিবেদক :
হেফাজত ইসলামের ডাকা হরতালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও ব্যাংকসহ বিভিন্ন স্থানে ব্যাপক ভাঙচুর এবং অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। রবিবার সকালে ভাঙচুর এবং অগ্নিসংযোগ করে হেফাজতের নেতা-কর্মীরা। হেফাজতের তাণ্ডবে এলাকাবাসীর মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

দৈনিক ইত্তেফাক অনলাইনকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি জানান, বিক্ষুব্ধ হরতালকারীরা জেলা পরিষদ, পৌরসভা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া পুলিশ লাইন, ইন্ডাস্ট্রিয়াল স্কুল, দি আলাউদ্দিন সঙ্গীতাঙ্গন ও ভূমি অফিসসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ভাঙচুর করে। ট্রেনে ইট-পাটকেল নিক্ষেপের পর ঢাকার সঙ্গে চট্টগ্রাম ও সিলেটের রেল যোগাযোগ বন্ধ রাখা হয়েছে।
এসময় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের বিশ্বরোড মোড়ে ব্যাপক ভাঙচুর করে এবং রাস্তায় ব্যারিকেড ও অগ্নিসংযোগ করে হেফাজতের নেতা-কর্মীরা।

এছাড়াও বড়তলা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করা হয়।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাব ভাঙচুরের সময় প্রেসক্লাব সভাপতি রিয়াদ উদ্দীন জামিরের ওপর হামলা করলে তিনি আহত হন। আহত অবস্থায় তাকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় ভাঙচুর এবং জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকারের বাড়ি ও জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রুবেলের বাড়িতে হামলা-ভাঙচুর করে হেফাজতের নেতা-কর্মীরা।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকার বলেন, ‘হরতালের নামে হেফাজত ব্যাপক তাণ্ডব চালিয়েছে। সরকারি ও বেসরকারিসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এবং বাড়িতে হামলা ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করে। হামলাগুলো গভীর ষড়যন্ত্র। হামলা প্রতিরোধে প্রশাসনসহ সবাই নীরব রয়েছে।’