Posted on

নেত্রকোণায় রোববার সোনালী ব্যাংকের শাখা উদ্বোধন


সুলতান আহমেদ,নেত্রকোণা প্রতিনিধি :
আগামীকাল রোববার সকাল ১০ টায়। নেত্রকোণায়
সোনালী ব্যাংকের শাখা উদ্বোধন করবেন সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: আশরাফ আলী খান খসরু,এমপি।এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিতথাকবেন সংসদ সদস্য,সংরক্ষিত মহিলা আসন-১৭ হাবিবা রহমান খান শেফালী।

অন্যদের মধ্যে উপস্থিত থাকবেন,জেলা প্রশাসক কাজি মো: আবদুর রহমান,জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান প্রশান্ত কুমার রায়,পুলিশ সুপার আকবর আলী মুনসী,পৌর মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: নজরুল ইসলাম খান,সদর উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো: তফসির উদ্দিন খান। ব্যাংকের শাখা উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন মো: আব্দুল মজিদ,জেনারেল ম্যানেজার,সোনালী ব্যাংক লি:ময়মনসিংহ, মো: নূরুল ইসলাম আঞ্চলিক কার্যালয় নেত্রকোণার এসিস্ট্যান্ট জেনারেল ম্যানেজার, রাস মোহন সাহা এসিস্ট্যান্ট জেনারেল ম্যানেজার প্রমূখ।।

Posted on

মুক্ত হয়ে যা বললেন আল্লামা মামুনুল হক


নিজস্ব প্রতিবেদক :
নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার রয়েল রিসোর্টে অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে মুক্ত হয়ে সমর্থকদের শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব আল্লামা মামুনুল হক।

তিনি বলেন, আপনাদের ভালোবাসার জন্য আমি কৃতজ্ঞ। সাংবাদিক ও পুলিশ আমার সঙ্গে কোনো খারাপ আচরণ করেনি। কিছু বাইরের লোক খারাপ আচরণ করেছে।

লাগাতার কাজের চাপের কারণে আমার একটু রিফ্রেশমেন্ট দরকার ছিল। এ জন্য আমি আমার দ্বিতীয় স্ত্রীকে নিয়ে এখানে ঘুরতে এসেছিলাম।
আজ শনিবার সন্ধ্যার পর মাওলানা মামুনুল হক অবরুদ্ধ থাকার সংবাদ শুনে কয়েকশ মানুষ রিসোর্টটির সামনে এসে জড়ো হয়। এ সময় তারা স্লোগান দিয়ে ভাঙচুর শুরু করে। পরে সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে নিয়ে যায়। এসময় সমর্থকদের সঙ্গে মিছিল সহকারে মোগড়াপাড়ার দিকে যান মামুনুল হক। পরে স্থানীয় একটি ঈদগাহ ময়দানে বক্তব্য রাখেন তিনি।

Posted on

করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৫৮


নিজস্ব প্রতিবেদক :

দেশে করোনাভাইরাসে আরও ৫৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৯ হাজার ২১৩ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় ৫ হাজর ৬৮৩ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে দেশে এখন পর্যন্ত মোট করোনা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬ লাখ ৩০ হাজার ২৭৭ জনে।
শনিবার (৩ এপ্রিল) বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এদিন সুস্থ হয়েছেন আরও ২ হাজার ৩৬৪ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ৫ লাখ ৪৯ হাজার ৭৭৫ জন।

এর আগে শুক্রবার (২ এপ্রিল) দেশে আরও ৬ হাজার ৮৩০ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়। এছাড়া আক্রান্তদের মধ্যে মারা যান আরও ৫০ জন।

Posted on

লকডাউনে যেভাবে চলবে শিল্প কারখানা


নিজস্ব প্রতিবেদক :
করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার পরিস্থিতিতে সারা দেশে সোমবার থেকে এক সপ্তাহের জন্য লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে। তবে এই সময়ে জরুরি সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান ও শিল্প কারখানা চালু থাকবে।

এ তথ্য জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। শনিবার এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানান তিনি।

লকডাউনে কীভাবে শিল্প কারখানা চালু থাকবে এর ব্যাখ্যায় জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, দ্রুত বেড়ে যাওয়া করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধ করার স্বার্থে দুই থেকে তিন দিনের মধ্যে সরকার সারা দেশে এক সপ্তাহের জন্য লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে। লকডাউন চলাকালে জরুরি সেবা দেয়—এমন প্রতিষ্ঠানগুলো এবং শিল্প-কারখানা খোলা থাকবে। শ্রমিকেরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে এবং বিভিন্ন শিফটে কারখানায় কাজ করবেন।

এদিকে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন আগামীকাল সোমবার থেকে এক সপ্তাহের জন্য লকডাউনে থাকবে দেশ।

প্রসঙ্গত, দেশে প্রথম করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ে গত বছরের ৮ মার্চ। এর ১০ দিন পর প্রথম মৃত্যু হয়। সম্প্রতি করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় রোগী শনাক্ত ও মৃত্যু বেড়েছে। শুক্রবার স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, দেশে ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ছয় হাজার ৮৩০ জন জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর আগে গত বৃহস্পতিবার ছয় হাজার ৪৬৯ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছিল, যেটি ছিল সর্বাধিক। এ নিয়ে দেশে মোট ছয় লাখ ২৪ হাজার ৫৯৪ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে।

এ ছাড়া দেশে নতুন করে করোনায় আরও ৫০ জন মারা গেছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে নয় হাজার ১৫৫ জনে দাঁড়িয়েছে।

Posted on

৫ এপ্রিল থেকে সারাদেশে লকডাউন ঘোষণা


নিজস্ব প্রতিবেদক :
করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় ফের লকডাউনে যাচ্ছে পুরো দেশ।

আগামী ৫ এপ্রিল থেকে এক সপ্তাহের লকডাউন ঘোষণা করতে যাচ্ছে সরকার।

শনিবার সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের তার সরকারি বাসভবনে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, কোভিড-১৯ সংক্রমণ উদ্বেগজনক হারে বাড়তে থাকায় আগামী সোমবার ৫ এপ্রিল থেকে সারাদেশ এক সপ্তাহের জন্য লকডাউন ঘোষণা করতে যাচ্ছে সরকার।

দেশে লাগামহীন হারে বাড়ছে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। প্রথমটির তুলনায় দ্বিতীয় ঢেউ তুলনামূলক ভয়াবহরূপে আবির্ভূত হয়েছে।

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির অবনতির কারণে সরকার এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। গত কয়েক দিন ধরেই প্রতিদিন ছয় হাজারের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন। গতকাল শুক্রবার একদিনে শনাক্ত সাত হাজারের কাছাকাছি পৌঁছায়।

করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় ইতোমধ্যে বন্ধ করা হয়েছে দেশের বিভিন্ন স্থানের পর্যটন কেন্দ্র। বাতিল করা হচ্ছে হোটেল-মোটেলে আগাম নেয়া বুকিং। পাশাপাশি নতুন বুকিংও বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

এছাড়া কোথাও সন্ধ্যার পর জনগণের চলাচল সীমিত করা হয়েছে। আবার কোথাও ওষুধ এবং কাঁচামালের দোকান ও বাজার বাদে অন্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা রাখার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। এসব নির্দেশনার প্রায় সবই স্থানীয় প্রশাসনের কাছ থেকে এসেছে। বৃহস্পতিবার থেকে এ নিষেধাজ্ঞা থাকবে মধ্য এপ্রিল পর্যন্ত।

প্রশাসনের সিদ্ধান্ত অমান্য করলে কঠোর আইনি ব্যবস্থা নেয়ার হুঁশিয়ারিও আছে। এর আগে গত বছর ২৬ মার্চ থেকে দেশের পর্যটন কেন্দ্রসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান প্রথমে লকডাউনের আওতায় ছিল। পরে লকডাউন উঠে গেলেও অনেক প্রতিষ্ঠান প্রায় ৫ মাস বন্ধ ছিল।