কোরবানির মাংস কাটতে যা লাগবে

জয়যাত্রা ডেষ্ক:

কোরবানির ঈদ মানেই মাংস নিয়ে ব্যস্ততা। কিভাবে পশু কোরবানি করতে হবে তা নিয়ে জল্পনা-কল্পনা। আর মাত্র কয়েকদিন পরেই কোরবানির ঈদ। এই ঈদে মাংস কাটা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।
অনেকেই গরু কোরবানি দেওয়ার পর নিজেরাই বাসায় বসে মাংস কাটার ব্যবস্থা করেন। সেক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই প্রয়োজনীয় কিছু জিনিস যেমন ছুরি, চাপাতি, দা, বটি, খাটিয়া ইত্যাদি ধুয়ে সুন্দর করে গুছিয়ে রাখতে হবে। তার আগে প্রয়োজন হলে ধার দিয়ে দিতে হবে। ঈদের দিন কোরবানীর পশু জবাই করার সময় এবং জবাই হয়ে যাবার পর মাপমতো কাটাকুটির প্রয়োজনে এসব অতি প্রয়োজনীয় এসব জিনিস হাতের কাছে চাইলেই যেন পাওয়া যায়।

কাজেই মাংস কাটার জন্য প্রয়োজনীয় এরকম কিছু জিনিস সম্পর্কে আগে থেকেই সচেতন হওয়া ভালো-

চাপাতি
মাংস কাটার জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ জিনিস হলো চাপাতি। এটি দিয়ে অনেক শক্ত হাড় কাটা হয়। চাপাতি যদি কসাই বেশি করে নিয়ে আসে তাহলে আপনার কেনার দরকার নেই। আর যদি আপনার পুরোনো চাপাতি থাকে তাহলে তা শান দিয়ে রাখুন। নতুন চাপাতি কারওয়ান বাজার থেকে যেকোনো কামারের দোকানে পাবেন। এগুলোর দাম পড়বে প্রায় ২০০-১ হাজার টাকার মধ্যে।

ছুরি
কোরবানির পশুর চামড়া ছাড়ানোর জন্য ছুরি দরকার হয়। ভালো ছুরি ছাড়া চামড়া ছাড়ানো কষ্ট হয়ে যায়। স্টিলের ছুরির চেয়ে কামারের তৈরি লোহার ছুরিই বেশি ভালো হবে এক্ষেত্রে। ঘরের ছুরিগুলো আপনি ভালো করে ধুয়ে পরিষ্কার করে নিন।

দা/বটি
চাপাতি দিয়ে সাধারণত মাংস বড় করে কাটার জন্য ব্যবহার করা হয়। মাংসকে ছোট ছোট করে কাটার জন্য আপনার দা বা বটি অবশ্যই লাগবে। এগুলোও প্রয়োজনমতো ধার দিয়ে ধুয়ে প্রস্তুত রাখতে হবে।

মাংস কাটার খাটিয়া
কোরবানি পশুর মাংস কাটার কাজে এই কাঠের খাটিয়া ব্যবহার করে থাকেন কসাইরা। তাছাড়া কোরবানির কাছাকাছি সময় গুলোতে বিভিন্ন মাপের বিভিন্ন দামের এসব খাটিয়া পাওয়া যায়। ৫০ থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ৫০০ টাকার মধ্যে এ ধরনের খাটিয়া দামও নির্ধারণ করা হয়। সাধারনত কাঠের মধ্যে তেঁতুল গাছের কাঠ অত্যন্ত শক্ত ও মজবুত, কাজেই কেনান আগে এ বিষয় গুলো মাথায় রাখা উচিত।

চপিং বোর্ড
মাংস ছোট করে কাটার জন্য চপিং বোর্ড ব্যবহার করা হয়। চপিং বোর্ড প্লাস্টিক অথবা কাঠের দু’রকমের হয়ে থাকে। আপনার পছন্দ অনুযায়ী বোর্ড সংগ্রহ করুন। মাংস কাটাকুটি করার আগে এগুলো যেমন ধুয়ে ব্যবহার করবেন, তেমনি কাটা শেষ হলে ভালো করে গরম পানি ও সাবান দিয়ে ঘষে মেজে ধুয়ে ফেলুন। সবশেষে পানি শুকিয়ে গেলে পরিস্কার নরম কাপড় দিয়ে মুছে তুলে রাখুন পরে ব্যবহারের জন্য।