বিশ্বে এক দিনে ৩৪ লাখ করোনা রোগী শনাক্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক :
করোনার অতিসংক্রামক ধরন ডেলটা ও অমিক্রন ছড়িয়ে পড়ায় বিশ্বজুড়ে সংক্রমণ লাফিয়ে বাড়ছে। এই ধারাবাহিকতায় করোনার দৈনিক সংক্রমণ ৩৪ লাখের কাছাকাছিতে উন্নীত হয়েছে। মহামারি শুরুর পর থেকে বিশ্বে এক দিনে এত রোগী শনাক্ত হয়নি।বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) গত বুধবার সন্ধ্যায় বিশ্বজুড়ে করোনার দৈনিক সংক্রমণ প্রথমবারের মতো ৩০ লাখ ছাড়িয়ে যাওয়ার খবর জানায়। সংস্থাটির বরাতে রাশিয়ার বার্তা সংস্থা তাস শুক্রবার জানিয়েছে, সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় এই সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৩ লাখ ৯৫ হাজার ৭৮৫। মহামারি শুরুর পর এটাই সর্বোচ্চ দৈনিক সংক্রমণ।

এদিকে ডব্লিউএইচওর ওয়েবসাইটে দেওয়া হালনাগাদ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বজুড়ে করোনায় শনাক্ত ৩১ কোটি ৫৩ লাখ ৪৫ হাজার ছাড়িয়েছে। করোনায় বিশ্বজুড়ে মারা গেছেন ৫৫ লাখ ১০ হাজারের বেশি মানুষ।

এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে ৬ কোটি ১৩ লাখ ৩২ হাজারের বেশি। তালিকায় এর পরেই রয়েছে ভারত (৩ কোটি ৬০ লাখ ৭০ হাজারের বেশি), ব্রাজিল (২ কোটি ২৫ লাখ ৫৮ হাজারের বেশি) ও যুক্তরাজ্য (১ কোটি ৪৭ লাখ ৩২ হাজারের বেশি)।

করোনার নতুন দুটি চিকিৎসাপদ্ধতির অনুমোদন দিয়েছে ডব্লিউএইচও। এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গুরুতর অসুস্থতা ও মৃত্যু প্রতিরোধ করতে টিকার পাশাপাশি নতুন চিকিৎসাপদ্ধতি ব্যবহার করা যাবে। ব্রিটিশ মেডিকেল জার্নালে ডব্লিউএইচওর বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, করোনায় গুরুতর অসুস্থ রোগীদের কর্টিকসটারয়েডস নামের একটি ওষুধের সঙ্গে আর্থ্রাইটিসের ওষুধ বারিসিটিনিব প্রয়োগ করলে ভেন্টিলেশনে নেওয়া ও মৃত্যুর ঝুঁকি কমে।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে করোনার অমিক্রনে সংক্রমিত ব্যক্তিদের হাসপাতালে যাওয়ার হার বাড়ছে। ডব্লিউএইচও আশঙ্কা করছে, আগামী মার্চ মাসের মধ্যে ইউরোপের অর্ধেক করোনায় সংক্রমিত হবে। এমন পরিস্থিতিতে যাঁরা বয়স্ক, রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা কম কিংবা ডায়াবেটিসের মতো কোনো রোগে ভুগছেন, তাঁদের করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে যাওয়ার ঝুঁকি কমাতে বিশেষজ্ঞরা সিনথেটিক অ্যান্টিবডি চিকিৎসাপদ্ধতি সট্রোভিম্যাবের সুপারিশ করে। তবে করোনায় সংক্রমিত যাঁদের হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়ার ঝুঁকি কম, তাঁদের সট্রোভিমাব প্রয়োগের খুব বেশি প্রয়োজন হয় না।ডব্লিউএইচও বলছে, অমিক্রনের মতো করোনার নতুন ধরনের বিরুদ্ধে এসব চিকিৎসাপদ্ধতি কতটা কার্যকর, সেটা এখনো অনিশ্চিত। গত বছর করোনাভাইরাসের আরও তিনটি চিকিৎসাপদ্ধতি সংস্থাটির অনুমোদন পেয়েছে।